logo
forex bangladesh

ফরেক্স সম্পর্কে বেসিক ধারনা

ফরেক্স হচ্ছে বিশ্বের বৃহত্তম মুদ্রাবাজার যেখানে একটি মুদ্রা বিপরীত কোন মুদ্রার সাথে ব্যাংক কর্তৃক প্রদত্ত বিনিময় মূল্যের ভিত্তিতে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের স্টক একচেঞ্জ কর্তৃক অনুমোদিত আন্তর্জাতিক মানের গ্লোবাল অনলাইন ও অফলাইন ব্রোকার হাউজের মধ্যস্থতায় ট্রেড বা কেনা-বেচা হয়ে থাকে৤ফরেক্স মার্কেট মুদ্রা বাজার হিসেবে যাত্রা শুরু করলেও এটি শুধুমাত্র মুদ্রা বাজারে সীমাবদ্ধ নয়।বর্তমানে ফরেক্স মার্কেটে বিশ্বের বৃহত্তম সকল কোম্পানির শেয়ার ও অন্যান্য উপাদান সমূহ কেনা-বেচা হয়ে থাকে৤

[1]Forex Trading Type

ফরেক্স মার্কেটে লেনদেন বা ক্রয়-বিক্রয় বুঝার ক্ষেত্রে আমরা প্রাথমিক পর্যায়ে মুদ্রা নিয়েই আলোচনা করি৤ ফরেক্স হচ্ছে একটি একচেঞ্জ মার্কেট এখানে লেনদেন হয়ে থাকে মূলত দুটি মুদ্রার বিনিময় মূল্যের উপর ভিত্তি করে৤ যেমন EUR/USD একটি মুদ্রা জোড়৤ ইউরো হচ্ছে ইউরোপীয় ইউনিয়নের মুদ্রা এবং ইউএসডি হচ্ছে মার্কিন মুদ্রা। আর মুদ্রা দুটির বিনিময় মূল্য হচ্ছে ১.১৪(বর্তমান) অর্থাৎ এক ইউরো সমান ১.১৪ মার্কিন ডলার৤ অথবা ১.১৪ মার্কিন ডলার সমান এক ইউরো৤ সুতরাং যদি আমরা এক ইউরো বিক্রি করতে চায় তাহলে আমরা পাবো ১.১৪ মার্কিন ডলার৤ বিপরীতে যদি আমরা এক ইউরো কিনতে চায় তাহলে আমাদের বিক্রি করতে হবে ১.১৪ ডলার৤ অর্থাৎ এ মূল্য বা এক্সেচেঞ্জ রেটের উপর ভিত্তি করে মুদ্রা দুটি কেনা-বেচা হবে।

চলুন এ বিষয়ে একটি উদাহরন দেয়া যাক

মনে করেন USD/BDT উক্ত মুদ্রা জোড়ের বিনিময় মূল্য হচ্ছে ৮০.৫০ পয়সা। মুদ্রা দুটির সার্বিক অবস্থা মূল্যায়ন করে আপনার কাছে মনে হয়েছে যে টাকার বিপরীতে ডলার শক্তিশালী হতে পারে। তাই আপনি ৮০.৫০ পয়সা মুল্যে ১০,০০ ডলার কিনলেন। আপনার টোটাল খরচ হয়েছে ৮০,৫০০/= টাকা।কিছুক্ষন পর আপনি দেখলেন যে ডলারের মূল্য বেড়ে ৮২ তে উঠে এসেছে।তাহলে আপনার কেনা এক হাজার ডলারের মূল্য দাড়িয়েছে এখন ৮২,০০০/= টাকায়। এমতবস্থায় যদি আপনি ডলার বিক্রি করে দেন তাহলে আপনার ১,৫০০ টাকা নিট প্রফিট।

বিপরীতে মনে করুন USD/BDT উক্ত মুদ্রা জোড়ের বিনিময় মুল্য হচ্ছে ৮৫ টাকা। আপনি মূল্যায়ন করলেন যে ডলারের বিপরীতে টাকা শক্তিশালী হবে।তাই আপনি ১ হাজার ডলার বিক্রি করে ৮৫ হাজার টাকা কিনলেন। কিছুক্ষন পরে দেখলেন যে টাকার বিপরীতে ডলারের মূল্য কমে ৮২ তে নেমে এসেছে (অর্থাৎ প্রতি ডলার ৩ টাকা করে পিছিয়েছে যা বিডিটির পক্ষে এসেছে। এমতাবস্থায় যদি আপনি রিজার্ভে থাকা ৮৫ হাজার টাকা কে (৮৫০০০/৮২) পূনরায় ডলারে পরিবর্তন করে নেন তাহলে আপনি পাবেন ১০৩৬.৫৮ ডলার। অর্থাৎ বাংলাদেশী টাকার বিপরীতে ডলারের মূল্য পতনের ফলে আপনি ৩৬.৫৮ ডলার বেশি পেয়েছেন যা আপনার প্রফিট। আর উক্ত লেনদেন টি সম্পন্ন হয় নিম্মোক্ত দুটি উপায়ে৤

সূতরাং যখন আমরা EUR/USD বা অন্যকোন মুদ্রাজোড়ে Buy বা Long position গ্রহন করি এর অর্থ হচ্ছে কারেন্সি কোটেশনে আমরা প্রথম মুদ্রার পক্ষে এবং সেকেন্ড মুদ্রার বিপক্ষে অবস্থান করছি। Long position এর ক্ষেত্রে একজন ট্রেডারের প্রত্যাশা হচ্ছে US dollar এর বিপরীতে EURO মুদ্রাটির মূল্য বৃদ্ধিপাক৤ অথবা ২য় মুদ্রার বিপরীতে প্রথম মুদ্রা শক্তিশালী হোক। আর যখন আমরা sell বা short position গ্রহন করি এর অর্থ হচ্ছে আমরা প্রথম মুদ্রার বিরপরীতে ২য় মুদ্রাকে প্রাধান্য দিচ্ছি । Short position এর ক্ষেত্রে একজন ট্রেডারের প্রত্যাশা হচ্ছে প্রথম মুদ্রার মুল্য পতনের মাধ্যমে ২য় মুদ্রাটি শক্তিশালী হোক। যেমন উপরোক্ত পেয়ারে EURO-র Price falling এর মাধ্যমে US dollar শক্তিশালী হোক এটাই আমাদের প্রত্যাশা৤ তবেই ডলারের পক্ষে অবস্থান গ্রহনের বিষয়টি প্রফিটে রূপ নিবে।

[2] Trading execution

উপরোক্ত দুটি কারবার সরাসরি মুদ্রা বাজারে কার্যকর হয় মূলত দুটি উপায়ে

এবার মার্কেট মূল্যায়ন যদি সঠিক হয় তাহলে ট্রেডটি প্রফিটাবল হচ্ছে।আর যদি মার্কেট বিশ্লেষন ভুল হয় সেক্ষেত্রে ট্রেড টি লস হচ্ছে। ঠিক এভাবেই ফরেক্স মার্কেটে গ্লোবাল ট্রেডিং হয়ে থাকে।অর্থাৎ যেখানে দুটি মুদ্রার বিনিময় মূল্যের ভিত্তিতে মুদ্রাজোড়টির শেয়ার ভ্যালু বৃদ্ধি পাওয়া না পাওয়ার উপর ভিত্তি করেই মূলত ট্রেডিং হয়ে থাকে। আর এ লেনদেন প্রক্রিয়াটি ফরেক্স মার্কেট কে নিয়ে গেছে এক অনন্য উচ্চতায়। যেখানে লেনদেনের পরিমান দৈনিক পাঁচ ট্রিলিয়ন ডলার৤ বিষয় টি বুঝার সুবিধার্থে নিম্মে বিশ্বের বৃহত্তম তিনটি স্টক এক্সেচেঞ্জর দৈনিক গড় ট্রেডিং Volume বা লেনদেনের একটি পারিমান উল্লেখ করলাম৤

বিপরীতে ফরেক্স মার্কেট ছাড়িয়ে গেছে বিশ্বের বৃহত্তম তিনটি স্টক এক্সচেঞ্জ কে, কারন ফরেক্স মার্কেটের দৈনিক গড় ট্রেডিং Volume ৫ ট্রিলিয়ন মার্কিন ডলার৤

forex bangladesh
Who Trade Forex

[4] Who Trade Forex?

1.Bank

ফরেক্স মার্কেটে সর্ব বৃহৎ মার্কেট প্লেয়ার হচ্ছে ইন্টারব্যাংক। দৈনিক ৫ ট্রিলিয়ন ডলার ট্রেডিং ভলিয়মের বৃহৎ অংশটি মূলত ইন্টারব্যাংকেরই। কারন ব্যাংকগুলো সাইজে ছোট-বড় যাইহোক না কেন তারা কিন্তু পরস্পরে ইলেক্ট্রনিক নেটওয়ার্কের মাধ্যমে মুদ্রা কেনা-বেচাতে লিপ্ত থাকে।এছাড়া বড় ব্যাংকগুলোর মোট মুদ্রার বৃহত্তর একটি অংশ কারেন্সি ট্রেডিংয়ের জন্য বরাদ্দ থাকে। ব্যাংক সাধারনত ক্লায়েন্টদের জন্য ফরেক্স লেনদেন সহজতর করে এবং নিজস্ব ট্রেডিং ডেস্ক থেকেই তা পরিচালনা করে থাকে। তারা যেসব ক্লায়েন্ট বা প্রতিষ্ঠান মুদ্রার ঊর্ধ্বগতি এবং নিম্নগতির উপর ভিত্তি করে মুনাফা করতে চায় তাদের সামনে ক্রেতা বিক্রেতা হিসাবে উপস্থিত থাকে।তাদের ক্রয়-বিক্রয়ের ধরনটি সাধারনত বিড-আস্ক-স্প্রেড হিসাবেই ট্রেডারদের সামনে উপস্থাপন করা হয়।

2.Central Banks

ফরেক্স মার্কেটে প্রধান মার্কেট প্লেয়ারের তালিকায় সেন্ট্রাল ব্যাংকগুলো অন্যতম। ফ্লোটিং,ফিক্সড এবং নির্দিষ্ট এক্সচেঞ্জ রেটের উপর ভিত্তি করে খোলা বাজারে মুদ্রা লেনদেনে সেন্ট্রাল ব্যাংকের সুদের হার নির্ধারনী সহ বিভিন্ন সিদ্ধান্তগুলো অনেক বেশি মুদ্রার ভাগ্য নির্ধারনী ও তারল্য সৃষ্টিতে ভুমিকা পালন করে। কেন্দ্রীয় ব্যাংক গুলো কে সাধারনত ফরেক্স ফিক্সিংয়ের জন্য দায়ী করা হয়।কারন কেন্দ্রীয় ব্যাংকের বিভিন্ন পদক্ষেপগুলো সাধারনত সে দেশের অর্থনীতির প্রতিদ্বন্দ্বীতাকে কেন্দ্র করেই গৃহিত হয়। যা অর্থনীতির স্থিতিশীলতা বা বৃদ্ধিতে ভুমিকা পালন করবে। এ জন্যে কেন্দ্রিয় ব্যাংকের মুদ্রানীতি,বৈদেশিক মুদ্রা ক্রয়, মুদ্রা সরবরাহ ইত্যাদি বিষয়গুলো ফরেক্স ট্রেডিংয়ে খুবই গুরুত্ব সহকারে বিবেচিত হয় ।

3.Investment Managers and Hedge Funds

ফরেক্স মার্কেটে প্রধান মার্কেট প্লেয়ারদের মধ্যে অন্যতম হচ্ছে পোর্টফোলিও ম্যানেজার এবং হেজফান্ড গুলো।যারা সাধারনত পেনশন ও এনডোওয়েট তহবিলের বৃহৎ একটি অংশ কারেন্সি ট্রেডিংয়ের জন্য বিনিয়োগ করে থাকে। আন্তর্জাতিক মানের এসব ইন্ভেস্টমেন্ট ম্যানেজারগন সাধারনত বিভিন্ন অর্থলগ্নি প্রতিষ্ঠানের পক্ষ হয়ে বৃহৎ সাইজের একাউন্ট মেনেজ করে থাকেন।এছাড়া যেসব বিনিয়োগ প্রতিষ্ঠান তাদের মূলধনের কিছু অংশ অধিক ঝুঁকিপূর্ন কোন খাতে বিনিয়োগে আগ্রহী তারাও হেজ ফান্ড হিসাবে ফরেক্স মার্কেটে উপস্থিত থাকেন। যাদের কে সাধারনত ফরেক্স মার্কেটে ফটকাবাজ হিসাবে বিবেচনা করা হয়।অধিকাংশ সময় ফান্ডামেন্টাল ইভেন্টসে এসব ফটকাবাজগন মার্কেটে বড় ধরনের পরিবর্তন ঘটায় । ফলে অতি চেনা একটি মার্কেট আপনার কাছে মাঝে মাঝে অপরিচিত হয়ে উঠবে কেবল মাত্র তৃতীয় শ্রেনীর এসব ইন্ভেস্টমেন্ট মেনেজার ও হেজফান্ড প্রতিষ্ঠানগুলোর কারনে।

4.Corporations

ফরেক্স মার্কেটে অন্যতম আরেকটি প্লেয়ার হচ্ছে ব্যবসায়িক ফার্ম। ব্যবসায়িক ফার্মগুলো পণ্য ও পরিষেবা আমদানি রপ্তানির জন্য ফরেন কারেন্সি লেনদেন করে থাকে। অর্থাৎ একটি দেশ যখন কোন পন্য বা সেবা আমদানী করে অথবা রপ্তানী করার সিদ্ধন্ত গ্রহন করে তখন উভয় দেশ অর্থ আদান প্রদানের ক্ষেত্রে বৈদেশীক মুদ্রার সহায়তা গ্রহন করে থাকে।যা পরবর্তিতে লোকাল মুদ্রাতে রূপান্তরিত হয়। ফরেক্স মার্কেটে এদের কে বলা হয় কর্পোরেট মার্কেট প্লেয়ার। যারা বানিজ্যিক কারনে ফরেন কারেন্সি ক্রয় বিক্রয়ে বাধ্য থাকেন।

5.Individual trader

গ্লোবাল এ ট্রেডিং মার্কেটে প্রায় বিশ্বের প্রতিটি দেশের কয়েক মিলিয়ন সিঙ্গেল ট্রেডার রয়েছে । যারা মেটা ট্রেডার সফটওয়্যারের সাহায্যে বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে উক্ত মার্কেটে ট্রেড করে থাকেন । ফরেক্স ট্রেডিং জনপ্র্রিয়তা অর্জনের পেছনে মূলত এসব ট্রেডারদের ভুমিকায় বেশী। কারন বর্তমান প্রতিযোগিতা মূলক বিশ্বে ফরেক্সের মত এত বৃহত্তর ট্রেডিং মার্কেট আরেকটি নেই।এখানে সর্বনিম্ন ৫ ডলার থেকে সর্বোচ্চ যে কোন এমাউন্ট দিয়েই ট্রেড করা যায়। এ কারনেই উন্নত বিশ্বের অধিকাংশ লোকই ফরেক্স ট্রেডিংয়ের সাথে সম্পৃক্ত

forex bangla tutorial

[5]Forex Trading Platform

ফরেক্স মার্কেটে ট্রেডিং হয়ে থাকে বিশেষ কিছু Software এর মাধ্যমে ৤ যেখানে পরস্পর দুটি মুদ্রার প্রকৃত বিনিময় মূল্য বা Exchange rate টি বিশ্বের প্রতিটি সেন্ট্রাল ব্যাংক এর সাথে সামঞ্জস্যপূর্ন থাকে এবং আজ পর্যন্ত কোন ব্রোকার কতৃর্ক কোন প্রকার কৃত্রিম মূল্য সংযোজন ও বিয়োজন হতে দেখা যায়নি। এটি সম্ভব ও নয়, তাই একজন বাংলাদেশী ফরেক্স ট্রেডার ঠিক যে মূল্যে ট্রেড করছে একই মূল্যে বিশ্বের অন্য প্রান্তে অবস্থান কারী ফরেক্স ট্রেডারগনও ট্রেড করছে। লোকেশন ভিন্ন হলেও উভয়ের ট্রেডিং প্লাটফর্ম একই।

Most useful forex trading platform

[6] Forex Trading session.

ফরেক্স বৈদেশিক মুদ্রা বাজার টি মূলত সমগ্র বিশ্বব্যাপী বিস্তৃত এবং বিশ্বের প্রধান চারটি বানিজ্যিক সময় সীমার ভিতরই উক্ত মুদ্রা বাজার টি প্রতিনিয়তই আবর্তিত হয়৤ এটি মূলত open হয় প্রতি রবিবার দিবাগত রাত ৩ টায় Sydney তথা অস্ট্রেলিয়ান বানিজ্যিক সময়ে এবং এটি close হয় প্রতি শুক্রবার দিবাগত রাত ৩ টায় New York সেশন সমাপ্তিতে। অর্থাৎ সপ্তাহে ৫ দিন ২৪ ঘন্টা উক্ত ট্রেডিং মার্কেট open খাকে । তাই একজন ফরেক্স ট্রেডার যে কোন সময় উক্ত ট্রেডিং মার্কেটে প্রবেশ করতে পারেন এবং মার্কেট পরিস্থিতি মূল্যায়ন করে BUY/SELL করার সুযোগ পেয়ে থাকেন৤

forex trading session

২৪ ঘন্টা ফরেক্স মার্কেট যে সব বানিজ্যিক সময়ের ভিতর আবর্তিত হয়৤

[7]The beauty of the forex market

বর্তমানে বিশ্বের সকল স্টকএক্সেচেঞ্জ ট্রেডাগন ফরেক্স ট্রেডিংয়ের প্রতি ঝুঁকছেন। বিষয়টি এখন সর্বাধিক আলোচিত ।নিশ্চয় এ মার্কেটে এমন কিছু সুবিধা রয়েছে যা ট্রেডিং পেশার প্রতি অগ্রহীদের কে আকৃষ্ট করতে সক্ষম হয়েছে। এজন্য নিম্মে ফরেক্স ট্রেডিংয়ের বিশেষ কিছু সৌন্দর্য্য আপানাদের সামনে উপস্থাপন করলাম।

[8] Forex trading terms

ফরেক্স ট্রেডিং বিশ্বব্যাপী বিস্তৃত। উক্ত ট্রেডিং মার্কেটে ১৮ বছর উর্ধে যে কোন ব্যাক্তি বিশ্বের যে কোন প্রান্ত থেকে ইন্টারনেটের মাধ্যমে প্রবেশ করতে পারে।ফরেক্স মার্কেটে প্রবেশের জন্য Account opening fee বা annual fee প্রদানের মত কোন প্রকারের ব্যয় বহন করতে হয় না৤ এছাড়া যে কোন প্রকারের বিনিয়োগ amount দিয়ে উক্ত ট্রেডিং মার্কেটে প্রবেশ করা যায়৤ নির্দিষ্ট কোন amount invest করার মত কোন প্রকার বাধ্যবাধকতা নেই৤ তবে বিষয় গুলো সহজ মনে হলেও বাস্তবিক ভাবে উক্ত ট্রেডিং মার্কেটে প্রবেশের ক্ষেত্রে কিছু বিষয় অবশ্যই আমাদের মাথায় রাখতে হবে ।

Facebook Facebook Facebook Linkdin youtube youtube
footer image
footer image

ফরেক্স ট্রেডিং সমগ্র বিশ্বে উম্মুক্ত হলেও বাংলাদেশে এটি স্বীকৃত নয়।ফলে ফরেক্স চিটাগাং কাউকে এ মার্কেটে বিনিয়োগে উৎসাহিত করেনা এবং কোন ব্রোকারের প্রতিনিধিত্ত ও করেনা।অন্য দশটি ফ্রিল্যান্সিং প্রজেক্টের মতই কিভাবে অর্থ বিনিয়োগ ছাড়াই ৫ট্রিলিয়ন ডলারের এ মার্কেটের হুমুখী সুবিধাগুলো কে কাজে লাগিয়ে একটি সুন্দর ক্যারিয়ার গড়া যায় শুধু মাত্র তাই প্রস্তাব করে।এছাড়া ফরেক্স চিটাগাংয়ের সেবাগুলো বিশ্বব্যাপী। তথ্যপ্রযুক্তির যোগে জানার অধিকার নিয়েই মূলত এ যাত্রা।সুতরাং বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির যোগে আপনার অন্ধত্ব আমার জন্য জন্য কখনোও প্রতিবন্ধক হতে পারেনা।

©copyright Forex Chittagong 2013-2019